BREAKING NEWS

১২ শ্রাবণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৯ জুলাই ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্বপ্নে ধর্ষণের অভিযোগ! তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ বিহারের মহিলা

Published by: Biswadip Dey |    Posted: June 24, 2021 3:20 pm|    Updated: June 24, 2021 3:20 pm

Bihar woman approaches police against occultist,claiming he gets physically intimate with her in dreams | Sangbad Pratidin

প্রতীকী ছবি।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্বপ্নের মধ্যে ধর্ষণ! শুনতে যতই অবিশ্বাস্য মনে হোক, এক তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ আনলেন বিহারের (Bihar) এক মহিলা। তাঁর অভিযোগ, ওই তান্ত্রিক (Occultist) স্বপ্নের মধ্যেই এসে তাঁকে ধর্ষণ (Physical intimacy) করেছেন বারবার। এই মর্মে অভিযোগ জানাতে পুলিশের দ্বারস্থও হয়েছেন তিনি।

ঠিক কী অভিযোগ তাঁর? গান্ধী ময়দানের বাসিন্দা ওই মহিলা জানিয়েছেন, গত জানুয়ারিতে তাঁর ছেলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। সেই সময় তিনি তান্ত্রিক প্রশান্ত চতুর্বেদির কাছে আসেন। ওই তান্ত্রিক তাঁকে একটি মন্ত্র দিয়ে সেটি জপ করতে বলেন। তাঁর দাবি ছিল, তাতেই কাজ হবে। সেরে উঠে ছেলে।

[আরও পড়ুন: আর পাঁচজন যাত্রীর মতোই দিল্লি মেট্রোতে সফর বাঁদরের, নেটদুনিয়ায় ভাইরাল ভিডিও]

শেষ পর্য‌ন্ত তা হয়নি। মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই মারা যায় মহিলার ছেলে। স্থানীয় কুডোয়া থানার পুলিশ অফিসার অঞ্জনি কুমার জানিয়েছেন, ‘‘ওঁর ছেলের মৃত্যুর পরে মহিলা ওই তান্ত্রিকের কাছে গিয়েছিলেন কালীবাড়িতে। তিনি ব্যাখ্যা চান, কেন তাঁর ছেলে মারা গেল।

অভিযোগ, এরপরই নাকি ওই মহিলাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন তান্ত্রিক। কিন্তু মহিলার দাবি, তাঁর ছেলেই তাঁকে বাঁচিয়ে দিয়েছে।’’ যদিও সেই সময় তিনি তান্ত্রিকের আচরণ নিয়ে পুলিশে কোনও অভিযোগ দায়ের করেননি। কাউকেই কিছু জানাননি।

[আরও পড়ুন: গল্প নয়, সত্যি! প্রথা মেনেই লিভ-ইনে থাকেন রাজস্থানের এই গ্রামের বাসিন্দারা]

মহিলার অভিযোগ, এরপরই শুরু হয় স্বপ্নের মধ্যে তান্ত্রিকের আনাগোনা। পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে দাবি করেছেন, নিয়মিত স্বপ্নেই এসে তাঁকে ধর্ষণ করেছেন অভিযুক্ত তান্ত্রিক। স্বাভাবিক ভাবেই এমন অভিযোগ পেয়ে হতভম্ব পুলিশও। তবে তারা অভিযোগটি গ্রহণ করেছে।

কেবল গ্রহণ করাই নয়, পুলিশ ইতিমধ্যে তলবও করেছিল ওই তান্ত্রিককে। অভিযুক্ত চতুর্বেদি জানিয়েছেন, তিনি ওই মহিলাকে চেনেনই না। তাঁর বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ না থাকায় এরপর একটি বন্ড লিখিয়ে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ব‌লে জানিয়েছে পুলিশ। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement