BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘বালাকোটে মরেনি কোনও সৈন্য বা নাগরিক’, সুষমার মন্তব্যে ভারতকে কটাক্ষ পাকিস্তানের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 19, 2019 12:53 pm|    Updated: April 19, 2019 12:53 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডি়জিটাল ডেস্ক: বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইকের ফলে মৃত্যু হয়নি কোনও পাকিস্তানি সৈন্য বা নাগরিকের। বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের এই মন্তব্যের পরেই পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বালাকোটের ঘটনা নিয়ে ভারতকে কটাক্ষ করা হল।

[আরও পড়ুন-মোদির কপ্টারে তল্লাশির জেরে বরখাস্ত আমলা, বিতর্ক রাজনৈতিক মহলে]

বৃহস্পতিবার গুজরাটের আমেদাবাদে বিজেপির মহিলাকর্মীদের সভায় গিয়ে বালাকোটের বিষয়টি উত্থাপন করেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। বলেন, “পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পিছনে থাকা জইশ-ই-মহম্মদের ঘাঁটিতে হামলার জন্য ভারতীয় সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছিল। তবে তাদের স্পষ্ট বলে দেওয়া হয়েছিল যে এই হামলার ফলে পাকিস্তানের কোনও নাগরিক বা সেনার যেন কোনও ক্ষতি না হয়। আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলিকেও শুধুমাত্র ভারতের প্রতিরক্ষার স্বার্থেই এই এয়ার স্ট্রাইক চালানো হচ্ছে বলে জানানো হয়েছিল।”

[আরও পড়ুন-ভুল করে বসপার বদলে বিজেপিকে ভোট, আঙুল কাটলেন যুবক]

কেন্দ্রীয় সরকারের উপরমহল থেকে পাওয়া খবরের সূত্র ধরে বালাকোটের হামলায় ৩০০ জন জঙ্গি খতম হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছিল ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলিতে। কিন্তু, সুষমার বক্তব্যের পর সেই দাবি কতটা যুক্তিসঙ্গত তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে পাকিস্তানের তরফে। পাকিস্তান সেনার মুখপাত্র আসিফ গফুর টুইট করেন, ‘অবশেষে সত্যিটা সামনে এল। এবার আশা করি ভারতের পক্ষ থেকে ২০১৬ সালের সার্জিকাল স্ট্রাইক, পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ভারতীয় বায়ুসেনার দুটি জেটবিমান গুলি করে নামানোর দাবিকে মিথ্যে বলা ও এফ-১৬ যুদ্ধবিমান সম্পর্কে ভারতের মিথ্যে দাবির মতো বিষয়গুলি সম্পর্কে সত্যি কথা প্রকাশ পাবে। কখনও না হওয়ার থেকে দেরিতে হওয়া ভাল।’

[আরও পড়ুন-ভারতের নির্বাচন থেকে দূরে থাকুন, ইমরানকে কড়া বার্তা রাম মাধবের]

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় সিআরপিএফ কনভয়ে জঙ্গি হামলার ফলে শহিদ হয়েছিলেন ৪৯ জন জওয়ান। এর বদলা হিসেবে বালাকোটের এয়ারস্ট্রাইকের ঘটনার সময় গোটা বিশ্ব ভারতের পাশেই ছিল বলে বৃহস্পতিবার দাবি করেন সুষমা। এপ্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজের দক্ষতায় আন্তর্জাতিক মহলে শীর্ষ নেতা হিসেবে চিহ্নিত হয়ে গোটা বিশ্বের সামনে একটা লক্ষ্য তুলে ধরেছেন। তার ফলেই আজ গোটা বিশ্ব আমাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement