১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ 

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও দীপাবলি ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ 

BREAKING NEWS

"নবীন কাদের বলে জানিস? যারা 'ন' বিনা কথাই বলতে পারে না!" সেদিন আড্ডায় জগাদা বেশ মুডে ছিল, তবু এমন একটা মন্তব্যে আমি এবং অন্য কমবয়সিরাও নড়েচড়ে বসলাম। "ন বিনা? তার মানে?"

-তার মানে, যাই বলিস, আগে একটা 'না' বসে যায়! এইতো, সেদিন হাবুকে বললাম, কিরে, অফিস যাচ্ছিস? বলল, না, মানে ওই অফিসেই যাচ্ছি! আর একটু আগে কমলকে বললাম, চা খাবি? বলল, না মানে, একটু চা পেলে মন্দ হয় না! অরে, যদি সম্মতিই দিবি, তাহলে 'না' বলিস কেন শুরুতে?
তুমুল হাসাহাসি, টিপ্পনির মধ্যে কমল বলল, "আচ্ছা জগাদা, একটা অতিরিক্ত না বললে কী সমস্যা হয়েছে? গুরু শারুখের একটা সিনেমাই তো ছিল, ম্যা হুঁ না!"

-"সমস্যা নেই মানে! যে চা করে, সে নাহয় চান ও করে, কিন্তু যিনি কফি বানান, তিনি কি কফিনও বানাবেন?"

-"কিন্তু শাস্ত্রে যে বলে অধিকন্তু ন দোষায়?"

-"সেটাই তো বললাম, অধিক ন প্রয়োগ করাটাই দোষের!"

আবার একপ্রস্থ হাসাহাসি হল, থামলে জগাদা গুছিয়ে বসে বললেন, "শোন তাহলে, আমার তখন পোস্টিং হয়েছে মাদ্রাজে। কলিগের নাম অখিল, দেখি সবাই অখিলন বলে ডাকছে! বসের নাম রবীন্দ্র, তাকেও নাকি রবীন্দ্রণ বলতে হবে! শান্তিনিকেতনের কসম, বিশ্বকবির নাম নিয়ে টানাটানি সহ্য হল না, একদিন লাঞ্চের সময়  বলেই বসলাম, আচ্ছা, আপনারা রামকে রামন বলেন, রাবনকে কী বলেন? হাসিমুখে জবাব এল, 'কেন, রাভাণন!' বুঝলাম এই দেশে কেউ কারো নন, এই চাকরিও নন প্রোডাক্টিভ হবে।  বললাম, ঠিক আছে, আজ থেকে আমিও আপনাদের লোকন।  বলেই ক্যান্টিন বয়কে ডাকলাম, একটু ভাতন আর সম্বরণ দাও ভাইন, আর পারলে একটা পাপড়ণ!"

[লাইনে আছি দাদা, অনলাইনেও]

-সেকি! ওরা কি সম্বরকে সম্বরণ বলে নাকি!

-না বোধহয়, কিন্তু আমি আর রিস্ক নিইনি। সকলে তো হাঁ! সেদিনই বসনের হাতে রেজিগনেশনও ধরিয়ে টান-টান করে চলে এসেছিলাম!

-সেকি দাদা, শুধুমাত্র ন-এর জন্যে একটা চাকরি ছেড়ে চলে এলেন! 

-দ্যাখো ভায়া, আমরা বাঙালি, পাঁচ আর পাঁচনের তফাৎ জানি, দাঁত আর দাঁতনও আমাদের কাছে আলাদা।
আবার হাসাহাসি। কিন্তু কমল তখনও মানতে নারাজ, বলল, "কিন্তু দাদা, আপনি নাহয় অতিরিক্ত ন-এর জন্যে ইডলি-ধোসার দেশ ছেড়ে চলে এলেন, তাতে কারো লাভ হলো কী?"

-“লাভ তো হলই না, উলটে ওই ন-এর লোভে গোটা শহরটার নামই মাদ্রাজ থেকে চেন্নাই হয়ে গেল!” জগাদার অকপট স্বীকারোক্তি!

 

লেখক পরিচিতি: এককালে ছিলেন আপিসের বড়বাবু। এখন বাবু হয়ে বসে শব্দ নিয়ে খেলেন লোফালুফি।পানাসক্ত নন, তবে PUN -এ শক্ত ইস্যুকেও ঘায়েল করেন অক্লেশে। ঝালে-ঝোলে-অম্বলে, বিয়ে-পুজো-ছাতা-কম্বলে, সোশ্যালে-অ্যান্টি সোশ্যালে কলম ছোটে জোরকদমে। এবার  ব্লগে কদম রাখলেন তিনি।  

 

 

ট্রেন্ডিং