BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার আতঙ্কের জের, বন্ধ সিদ্ধি বিনায়ক মন্দির, বাদ পড়ল না অজন্তা-ইলোরা গুহাও

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 16, 2020 8:21 pm|    Updated: March 16, 2020 8:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার প্রভাব থেকে বাদ যায়নি ধর্মীয় স্থানগুলি। পশ্চিমবঙ্গের পরে আজ থেকে মুম্বইয়ের সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরও বন্ধ করে দেওয়া হয় অনির্দিষ্টকালের জন্য। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নোটিশ জারি করে মন্দির খোলা হবে।

৭টি রাজ্যে ইতিমধ্যেই স্কুল-কলেজ বন্ধ হওয়ার পর ‘লক ডাউন’-এর প্রস্তুতি সেরেছে রাজ্যগুলি। পাবলিক প্লেসে জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তে ভক্তদের নিত্যপুজোয় বাধা পড়লেও তাদেরকেও করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রে এপর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এরপরেই রয়েছে কেরলের স্থান। মহারাষ্ট্রে মোট ৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মুম্বইয়ের সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে যাতে পূজারি সহ ভক্তদের মধ্যে এই ভাইরাসের সংক্রমণ না হয় তাই মন্দিরের সকল পূজারি ও ভক্তদের এতদিন মাস্ক পরে আসতে বলা হয়েছিল। তবে সকলের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে আজ থেকে মন্দির বন্ধের সিদ্ধান্ত নিল মন্দির কর্তৃপক্ষ। সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরের ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আদেশ বন্দেকার বলেন, আমরা মন্দিরে আসা সকল ভক্তদের হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধুতে সাহায্য করেছি। প্রতি আধ ঘণ্টা অন্তর তাদের লাইন করে হ্যান্ড স্যানিটাইজ করানো হয়। এমনকি আমরা প্রতিটি মন্দির রক্ষীদেরও মাস্ক দিয়ে তাদের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখার চেষ্টা করি। এইভাবে আমরা করোনা দমনের সমস্ত সম্ভাব্য চেষ্টা করেছি। আজই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে জেলাশাসকদের সঙ্গে কথা বলেন নিশ্চিত করেন সমস্ত ধর্মীয়স্থান বন্ধ করে দেওয়ার। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজনৈতিক মিছিল হোক বা কোনও মিটিং সবক্ষেত্রেই এই নিয়ম মেনে করোনার সংক্রমণ রুখতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন:‘করোনা রুখতে যথাসম্ভব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে’, ফের আশ্বাস প্রধানমন্ত্রীর]

ধর্মীয় স্থানের পাশাপাশি মুম্বইয়ের অজন্তা, ইলোরার গুহাও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে ৭ এপ্রিল পর্যন্ত গুহাগুলি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পর্যটকদের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে ঔরঙ্গাবাদের বিবি-কা-মকবারা ও দেবগিরির দুর্গ। মহারাষ্ট্র সরকারের তরফ থেকে নির্দেশিকা জারি করে উনিশে মার্চ থেকে ঔরঙ্গাবাদের সমস্ত স্মৃতি সৌধ বন্ধের ঘোষণা করা হয়।

[আরও পড়ুন:করোনা রুখতে শাহিনবাগের প্রতিবাদ বন্ধের আরজি কেজরিওয়ালের, নারাজ আন্দোলনকারীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement