৮ শ্রাবণ  ১৪২৬  বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের রানওয়েতে বিপত্তি৷ নেপালের লুকলা বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বিমান দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল অন্তত ৩ জনের৷ এভারেস্টে আরোহণের জন্য কাঠমাণ্ডুর লুকলা বিমানবন্দরই সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করেন অভিযাত্রীরা৷ বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের কাছাকাছি এই বিমানবন্দর অন্যতম দুর্গম জায়গা৷ বিমান বা কপ্টার অবতরণের সময় পাইলটকে অনেক বেশি সাবধানী এবং দক্ষ হতে হয়৷ আর রবিবার এই প্রতিকূলতার কারণেই ঘটে গেল দুর্ঘটনা৷

                                          [ আরও পড়ুন: রাফালে চুক্তির পরই আম্বানির ১১০০ কোটির কর মকুব! প্রকাশ্যে বিস্ফোরক রিপোর্ট]

এদিন সকালে লুকলা বিমানবন্দরে অবতরণ করছিল একটি এলইটি-410 বিমান৷ একটি চাকা আচমকাই পিছলে গিয়ে পাশের হেলিপ্যাডের দিকে হেলে যায় বিমানটি৷ সেখানে দাঁড়িয়ে ছিল দু’টি হেলিকপ্টার৷ ছিলেন কয়েকজন নিরাপত্তা আধিকারিক, পুলিশ৷ বিমানটি গিয়ে ধাক্কা দেয় হেলিকপ্টারগুলিতে৷ বিমানের কো-পাইলট এবং একজন পুলিশ অফিসারের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলেই৷ আরেকজন পুলিশকর্মীকে জখম অবস্থায় উদ্ধার করে তড়িঘড়ি নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন৷ তিনজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে লুকলা বিমানবন্দরের আধিকারিক এমানাথ অধিকারী৷ তিনি বলেন, ‘বিমানটি নামার সময়ে চাকা পিছলে হেলিপ্যাডে ঢুকে গিয়েছিল৷ তখনই দুটি কপ্টারের সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটে৷ কয়েকজন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷’ কেন এমন দুর্ঘটনা ঘটল, সেসম্পর্কে এখনও কোনও ধারণা করতে পারছে না বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ৷ তদন্ত শুরু হয়েছে৷ এর আগে ফেব্রুয়ারিতেও এভারেস্টের কাছে হেলিকপ্টার ভেঙে পড়ে মৃত্যু হয়েছিল সাতজনের৷

                                             [ আরও পড়ুন: মহিলা সাংসদকে দেখে ভিড় বাসেই হস্তমৈথুন, ভিডিওতে প্রতিবাদ]

প্রতি বছর এভারেস্ট যাত্রার সময় পর্বতারোহীরা এই লুকলা বিমানবন্দর থেকেই অভিযান শুরু করেন৷ এপ্রিল থেকেই শুরু হয়েছে বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গজয়ের অভিযান৷ তাই এই সময়ে ভিড় বেশিই থাকে৷ নেপাল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এই সময়ে বেশ হিমশিম খায়৷

lukla airport

এমনিতেই নেপালের উড়ান সংস্থাগুলির অবস্থা বিশেষ ভাল নয়৷ পণ্য আনা-নেওয়ার জন্যেও বিমান ব্যবহার করা হয়৷ তবে পরিকeঠামো উন্নয়নের অভাবে দুর্ঘটনা প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা৷ তার উপর পর্যটকের চাপ বাড়ছে৷ তাই চাইলেও পরিষেবা খুব ভালভাবে দিতে ব্যর্থ নেপালের বিমানবন্দর সংস্থাগুলি৷ বিশেষত নিরাপত্তার বিষয়টি একেবারেই অবহেলিত বলে প্রায়শই অভিযোগ উঠছে৷ এই পরিস্থিতির জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন নেপালে উড়ান পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ার দাবি তুলেছিল৷ সেসব উড়িয়ে নিরাপত্তার পরোয়া না করেই নেপালে চলছে বিমান পরিষেবা৷ আর বাড়ছে দুর্ঘটনা, প্রাণহানি৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং