মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্রয়েই দেশদ্রোহী কথাবার্তা বরকতির, বিস্ফোরক দিলীপ

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুধবারই আনুষ্ঠানিকভাবে টিপু সুলতান মসজিদের ইমাম পদ থেকে বরকতিকে বরখাস্ত করেছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ৷ দেশবিদ্রোহী বিতর্কিত মন্তব্য, বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে আগেই উঠেছিল৷ সাম্প্রতিক সময়ে তা চরমে পৌঁছায়৷ তারপরই তাঁকে বরখাস্ত করা হয়৷ এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ তাঁর দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশ্রয়েই এই ধরনের দেশবিরোধী কথা বলার সাহস পেয়েছেন বরকতি৷

[ বিশ্ব আদালতে বড় জয় ভারতের, কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ডে জারি স্থগিতাদেশ  ]

সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিজেপি রাজ্য সভাপতি জানান, ইমাম একজন ধর্মগুরু৷ বিশেষ ধর্ম সম্প্রদায়ের মুখপাত্র৷ কে ইমাম হবেন, কে শাহি ইমাম হবেন তা মুখ্যমন্ত্রী ঠিক করে দেবেন কেন? প্রসঙ্গত, মসজিদের রায় মেনে নেননি বরখতি৷ পুরো বিষয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হবেন বলেও জানিয়েছিলেন৷ এ নিয়েই প্রশ্ন করা হলে মুখ খোলেন দিলীপবাবু৷ তাঁর দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্রয়েই এ ধরনের দেশবিরোধী কথা বলার সাহস দেখাতে পারেন বরকতি৷ এ ধরনের ধর্মগুরুর সাজা হওয়া উচিত দাবি করে তিনি বলেন, অনেক আগেই তাঁরা এ দাবি তুলেছিলেন৷ এতদিনে তাঁকে যাঁরা বরখাস্ত করেছেন তাঁদের ধন্যবাদও জানান তিনি৷

[ মন্দিরের ভিতরে ঢুকে পড়ল ১২ ফুট লম্বা কুমির, তারপর? ]

পরপর দেশবিরোধী মন্তব্যের জেরে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদেরই কোপে পড়েন বরকতি৷ মসজিদ চত্বরে তাঁর বিরুদ্ধে সভা করে প্রতিবাদ জানান মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী৷ জানানো হয়, মুসলিমরা ভারতে ও ভারতের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে সম্মান করে৷ তাঁরা কোনওভাবেই পাকিস্তান চায় না৷ ইমামের বক্তব্যের সঙ্গে মসজিদ কর্তৃপক্ষ সহমত নয় বলেও জানানো হয়৷ এরপরই বরকতিকে বরখাস্তের প্রক্রিয়া শুরু হয়৷ গতকালই তাঁকে আনুষ্ঠানিকভাবে বরখাস্ত করা হয়৷ যদিও বরকতির এই বাড়বাড়ন্তের পিছনে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্রয়কেই দায়ি করছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *