মধুর প্রতিশোধ, রায়নার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে পরাস্ত কেকেআর

কলকাতা নাইট রাইডার্স: ১৮৭/৪ (নারিন-৪২, উথাপ্পা-৭২)

গুজরাট: ১৮৮/৬ (রায়না-৮৪, ম্যাকালাম-৩৩)

৪ উইকেটে জয়ী গুজরাট

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথমবার মুখোমুখি হয়ে হারতে হয়েছিল ১০ উইকেটে। ইতিহাস গড়ে দশম আইপিএল শুরু করেছিল নাইট রাইডার্স। উল্টোদিকে ঘরের মাঠে চোট খাওয়া সিংহের মতোই করুণ অবস্থা হয়েছিল গুজরাট লায়ন্সের। তখনই যেন নেতা সুরেশ রায়না প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, নাইটদের ডেরায় গিয়েই সিংহ গর্জন ছাড়বেন। গম্ভীরদের হারিয়ে হারের প্রতিশোধ নেবেন। শুক্রবার সেই লক্ষ্যেই জান-প্রাণ দিয়ে লড়লেন ম্যাকালাম, ফিঞ্চরা। তাঁদের দৃঢ় সংকল্পের সামনে মাথা নোয়াতে হল নাইটদের। কিং খানের দলের বিজয় রথ থামিয়ে ইডেনে জয়ের ঝাণ্ডা ওড়ালেন রায়নারা। শুক্রবার বৃষ্টি ভেজা পোশাকে শুকনো মুখেই ইডেন ছাড়তে হল কেকেআর ভক্তদের।

CI1I4615

প্রথম থেকেই ঝড়ের গতিতে রান তুলতে শুরু করে দেন নাইটরা। মাত্র পাঁচ ওভারেই কেকেআর স্কোরবোর্ডে জ্বলজ্বল করছিল ৫৭ রান। এদিন আর কোনও ফাটকা নয়। গম্ভীর একেবারে মেপে জুপে ওপেন করালেন নারিনকে দিয়ে। তাঁর স্ট্র্যাটেজি এবারও সফল। ১৭ বলে দুরন্ত ৪২ রানের ইনিংস খেলে নিজের দায়িত্ব পালন করে ফিরলেন আইপিএল-এ ‘ব্যাটসম্যান’ হিসেবে নতুন করে জন্ম নেওয়া ক্যারিবিয়ান স্পিনার। নারিনকে থামাতে রায়নার মগজাস্ত্রের কথা উল্লেখ করতেই হয়। নিজে বল হাতে তুলে নিতেই এল সাফল্য। তবে তাতেও কমানো গেল না কেকেআর-এর রান রেট। নারিনের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিজেকে প্রমাণ করতে যেন ব্যস্ত ছিলেন উথাপ্পাও। ৪৮ বল খেলে করলেন ৭২ রান। হাঁকালেন ৮টি চার ও ২টি ছয়। গম্ভীর (৩৩) ও নারিন যে ছন্দে শুরু করেছিলেন, সেই ছন্দই ধরে রাখলেন উথাপ্পা, মনীশরা (২৪)। তবে শেষ ওভারে দুর্দান্ত বল করে নাইটদের ১৮৭ রানেই আটকে দিলেন বাসিল থাম্পি। ইউসুফের ভুল সিদ্ধান্তে রান আউট হয়ে ফিরলেন সূর্যকুমার যাদব। প্রবীণ কুমার, ফোকনার ও থাম্পি একটি করে উইকেট নেন।

[পাহাড়ে টানা বৃষ্টিতে কপালে চিন্তার ভাঁজ টিম মোহনবাগানের]

লিগ তালিকার শেষে সিংহরা। তাই জয়ের খিদেটাও অনেকটা বেশি ছিল। ব্যাট করতে নেমে যেন সে কথাই মনে করিয়ে দিলেন ম্যাককালামরা। কেকেআর-কে ছাপিয়ে ৫ ওভার শেষে তাদের স্কোর ছিল ৬২। ৩৩ রানে ম্যাকালাম ফিরে যাওয়ার পরও কমল না রানের গতি। অবশ্য বৃষ্টি ভেজা ইডেনে স্বাভাবিকভাবেই আউট-ফিল্ড স্লো হয়ে যায়। ফলে লড়াইটা গুজরাটের জন্য আরও কঠিন হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এদিন রায়নারা যেন ঠিক করেই রেখেছিলেন, কোনও মূল্যেই হারলে চলবে না। ৪৬ বলে ৮৪ রানের দর্শনীয় ইনিংস খেলে দলকে জয়ের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়ে আউট হলেন নেতা রায়না। বাকি কাজটা করলেন রবীন্দ্র জাদেজা (১৯)। উথাপ্পা দুটি ক্যাচ মিস করাতেই ম্যাচও মিস হয়ে গেল।

CI1I4804

[বিষ্ণু অবতারে ধোনির ছবি সংক্রান্ত মামলা খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট]

ইডেনের শব্দব্রহ্ম। বৃষ্টির চোখ রাঙানি। নেতা গম্ভীরের মগজাস্ত্র। দুরন্ত ফর্মে থাকা নাইটবাহিনী। এই সব প্রতিকূলতাকে কাটিয়ে কঠিন লড়াইয়ে উত্তীর্ণ হলেন রায়নারা। আরও একবার খারাপ ফিল্ডিংয়ের খেসারত দিতে হল নাইটদের। বৃষ্টির অ্যাডভানটেজও নিতে পারলেন না কুলদীপ, নারিনরা। লিগ তালিকার শেষে থেকেও ধারে ও ভারে এগিয়ে থাকা কিং খানকে হুঙ্কার দিয়ে সিংহরা জানান দিলেন, ‘পিকচার অভি ভি বাকি হ্যায়।’ এ ম্যাচের পর পুণেকে পিছনে ফেলে গুজরাট উঠে এল সাত নম্বরে।

ছবি সৌজন্যে বিসিসিআই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *