মোবাইল কিনতে ১১ মাসের সন্তানকে বিক্রি করল বাবা

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একসময় মোবাইল ফোন ছিল বিলাসিতা। ক্রমে দ্রুত যোগাযোগের জন্য মোবাইল ফোনের উপর মানুষের নির্ভরতা বেড়েছে। আর এখন নিছক প্রয়োজন নয়, মোবাইল ফোনে আসক্ত হয়ে পড়ছেন অনেকেই। আসক্তি এতটাই, যে একটি মোবাইল ফোন কেনার জন্য নিজের ছেলেকেই বিক্রি করে দিলেন এক ব্যক্তি। অবিশ্বাস্য মনে হলেও, এমনই ঘটনা ঘটেছে ওড়িশার ভদ্রকে। অভিযুক্ত বলরাম মুখিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তের স্ত্রীকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

[ভারতীয়রা আসলে সবাই হিন্দু, মোহন ভাগবতের মন্তব্যে বিতর্ক তুঙ্গে]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সন্তান হারানো এক দম্পতির কাছে ২৩ হাজার টাকার বিনিময়ে নিজের ছেলেকে বিক্রি করে দিয়েছে বলরাম। আর সেই ২৩ হাজার টাকার মধ্যে ২ হাজার টাকা নিয়ে একটি মোবাইল ফোন কিনেছে সে। দেড় হাজার টাকা দিয়ে মেয়ের জন্য একটি রুপোর গয়না কিনেছে বলরাম। বাকি টাকা মদের পিছনে খরচ করেছে। ভদ্রকের পুলিশ সুপার অনুপ শাহু জানিয়েছেন, পেশায় ঝাড়ুদার বলরামের কোনও স্থায়ী রোজগার নেই। সম্প্রতি অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী সোমনাথ শেঠি ও তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে আলাপ হয় বলরামের। ২০১২ সালে ওই দম্পতির একমাত্রে সন্তান মারা যায়। তারপর থেকে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন সোমনাথ শেঠির স্ত্রী। নিজে্র পরিচিত মহলে একটি শিশু দত্তক নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন সোমনাথ শেঠি।  সুযোগ বুঝে শেঠি দম্পতির কাছেই ২৩ হাজার টাকার বিনিময়ে নিজের এগারো মাসের ছেলেকে বিক্রি করে দেয় বলরাম মুখি।

[রোল কলের জবাবে ‘জয় হিন্দ’ বলুক পড়ুয়ারা, নিদান মন্ত্রীর]

তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, ভগ্নীপতি বালিয়া ও একজন অঙ্গনওয়ারি কর্মীর মাধ্যমে সোমনাথ শেঠি ও তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে আলাপ হয়েছিল বলরাম মুখির। স্থানীয় থানার এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, অভিযুক্তের ভগ্নীপতি বালিয়া, ওই অঙ্গনওয়ারি কর্মী ও শেঠি দম্পতিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

[বর্ণিকা কুণ্ডুর বাবাকে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ পদে বদলি, বিতর্ক তুঙ্গে]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *