শ্রমদিবস বাড়িয়ে ১০০ দিনের কাজে ‘রেকর্ড’ গড়ল বাংলা

সন্দীপ চক্রবর্তী, কলকাতা : লক্ষ্যমাত্রা পূরণ তো হয়েছেই। সঙ্গে ৩৩ শতাংশ বেশি শ্রমদিবস তৈরি করে একশো দিনের কাজে রেকর্ড গড়ল পশ্চিমবঙ্গ৷ পঞ্চায়েতে ক্ষমতায়ন নারীশক্তিরও৷ তথ্য বলছে, গ্রামের কাজে পুরনো রেকর্ড ভেঙে এবারই বিগত বছরগুলির তুলনায় সর্বাধিক মহিলা এনআরইজিএ প্রকল্পে যুক্ত হয়েছেন, কাজ পেয়েছেন৷ রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোটের আগের বছরে নারী ক্ষমতায়নের নতুন নজির এটি৷ এবার মোট কর্মীর মধ্যে ৪৬.৪৬ শতাংশই মহিলা।

[বেতন বাড়াতে হবে না, ভাল খাবার ও ছুটি চাই: তেজ বাহাদুর]

গত অর্থবর্ষে একশো দিনের কাজের প্রকল্পে রাজ্যের ক্ষেত্রে ১৮.৩৩ কোটি শ্রমদিবসের লক্ষ্যমাত্রা রেখেছিল কেন্দ্র৷ আর্থিক বছরের শেষের হিসাব, রাজ্য সেই লক্ষ্যমাত্রা তো ছাপিয়েছেই, বরং উল্লেখযোগ্যভাবে প্রায় ২৪ কোটি শ্রমদিবস তৈরি হয়েছে৷ লক্ষ্যমাত্রাকে ছাপিয়ে ৩৩ শতাংশের মতো বৃ‌দ্ধি সারা দেশে রেকর্ড৷ টার্গেট-এর তুলনায় রূপায়ণের এতটা বৃ‌দ্ধি আগে হয়নি৷ প্রশাসন বলছে, বিধানসভার ভোট না থাকলে এই হার আরও বাড়ত।

এদিকে রাজ্যের সাফল্যের কারণে চলতি অর্থবর্ষে লক্ষ্যমাত্রাও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রের গ্রামোন্নয়নমন্ত্রক৷ এবার পশ্চিমবঙ্গকে ২৩ কোটি শ্রমদিবস তৈরি করার ‘টার্গেট’ দেওয়া হয়েছে৷স্বভাবতই এর ফলে গ্রামীণ কর্মনিশ্চয়তা প্রকল্পে আরও বেশি টাকা। রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেছেন, “আমরা মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে একদম নিচুস্তর পর্যন্ত কাজকে ছড়িয়ে দিয়েছি৷ তার সুফল মিলেছে৷ আমাদের রেকর্ড আমরাই ভাঙব৷”

[সুখ-সমৃদ্ধি বৃদ্ধিতে ঘরের এই দিকেই রাখুন ক্যালেন্ডার]

রাজ্যগুলির মধ্যে এখন একশো দিনের কাজের মজুরি সবচেয়ে বেশি হরিয়ানায়৷ গতবারের ২৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২৫৯ টাকা করা হয়েছে৷ কেরলে মজুরি ২৪০ টাকা। সেই তুলনায় এ রাজ্যে মজুরি অনেকটাই কম, ১৭৬ টাকা৷ প্রশাসনের দাবি, কেন্দ্রকে বারবার বলা সত্ত্বেও সম্প্রতি এই রাজ্যের ক্ষেত্রে মাত্র দু’টাকা মজুরি বাড়ানো হয়েছে। কেন্দ্রের বক্তব্য, কৃষিতে উপভোক্তা সূচকের উপর নির্ভর করে এই মজুরি ঠিক করা হয়৷ তবে আধিকারিকরা মনে করছেন, এ রাজ্যে দৈনিক মজুরির পরিমাণ বাড়ানো হলে আরও বেশি মানুষকে প্রকল্পে যুক্ত করা সম্ভব হত৷ আধার কার্ডকে যুক্ত করার ফলেও অনেকে কাজের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন, এমন অভিযোগও শোনা যাচ্ছে।

[তিন মাসের বাচ্চা নাকি ‘সন্ত্রাসবাদী’, ১০ ঘণ্টা ধরে চলল জেরা!]

কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গে সদ্য শেষ হওয়া অর্থবর্ষে ২৩.৩৯ কোটি শ্রমদিবস তৈরি হয়েছে বা কাজ হয়েছে৷ মূলত সেচের কাজে কর্মীদের যুক্ত করা হয়েছে৷ এবার আরও মানুষকে এই কাজে যুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য। কিন্তু আর্থিক দিক দিয়ে কেন্দ্র কতটা সাহায্য করবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে প্রশাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *