১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সত্যজিৎ-মৃণাল-ঋত্বিক। একসময়ে একই সঙ্গে উচ্চারিত হত এই তিন দিকপাল পরিচালকের নাম। সত্যজিৎ রায় ও ঋত্বিক ঘটক আগেই প্রয়াত হয়েছেন। তিনিও আর ছবি বানাতেন না। বহুকাল বার্ধক্যজনিত অসুখে শয্যাশায়ী ছিলেন।  রবিবার সকালে প্রয়াত হলেন পরিচালক মৃণাল সেনও। চলচ্চিত্র জগতে তাঁর মৃত্যুকে নক্ষত্রপতন বললেও বোধহয় কম বলা হবে। অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, বাংলা সিনেমায় এক মহীরুহের পতন। পরিচালক নন, মৃণাল সেনকে ‘অভিনয়ের শিক্ষক’ বলে বর্ণনা করেছেন অভিনেত্রী অপর্ণা সেন। প্রবাদপ্রতীম এই পরিচালকের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

আজীবন বামপন্থী আদর্শে বিশ্বাস করতেন। সিনেমাকে নিছকই বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে ভাবতে রাজি ছিলেন না। মৃণাল সেনের পরিচালিত ছবিতে সবসময়ই ফুটে উঠেছে সামাজিক বার্তা। সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটকের সঙ্গে একই সময়ে চলচ্চিত্র জগতে পা রেখেছিলেন মৃণাল সেন। কিন্তু, ছবির আঙ্গিক হোক কিংবা বিষয়বস্তু, সমসাময়িক দুই দিকপালের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা ঘরানার ছবি তৈরি করে গিয়েছেন মৃণাল সেন। অনেকেই তাঁকে ‘প্যারালাল সিনেমা’র জনক বলে মনে করেন। দাদাসাহেব ফালকে, পদ্মভূষণ-সহ একাধিক সম্মানে ভূষিত হয়েছেন মৃণাল সেন। তাঁর ছবি সমানভাবে সমাদৃত হয়েছে বিদেশেও।

[ভারতীয় চলচ্চিত্রে যুগাবসান, প্রয়াত পরিচালক মৃণাল সেন]

বয়স নব্বই পেরিয়ে গিয়েছিল। বহু বছর বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় শয্যাশায়ী ছিলেন। জনসমক্ষে আসতেন না একেবারেই। তবু তিনি আছেন, এটুকুই যা ভরসা ছিল। কিন্তু তাও আর রইল না। রবিবার সকালে ভবানীপুরে নিজের বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন ‘ভুবন সোম’, ‘আকালের সন্ধানে’-র স্রষ্টা। শোকে ম্যুহমান চলচ্চিত্র জগত। তাঁর ছবিতে সেভাবে হয়তো অভিনয় করেননি। তবে মৃণাল সেনের সঙ্গে পারিবারিক সম্পর্ক ছিল অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। পরিচালকের মৃত্যুকে ‘বাংলা চলচ্চিত্রের মহীরুহের পতন’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। আর অভিনেত্রী অপর্ণা সেন বলেছেন, অভিনেতা-অভিনেত্রীর কাছ থেকে সেরা অভিনয়টা কীভাবে বের করে আনতে হয়, তা জানতেন মৃণাল সেন। কেরিয়ারের শুরুর দিকে তিনি নিজেও ক্যামেরার সামনে ততটা স্বচ্ছন্দ ছিলেন না। সেই জড়তা কেটে গিয়েছিল মৃণালের সান্নিধ্যেই। পরিচালকের মৃত্যুতে টুইট করে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ নিজের বাড়িতে প্রয়াত হয়েছেন পরিচালক মৃণাল সেন। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁর ছেলে কুণাল থাকেন আমেরিকায়। তিনি না আসা অবধি মরদেহ রাখা থাকবে পিস হাভেনে। ছেলে ফিরলেই শেষকৃত্য হবে প্রয়াত পরিচালকের। মৃণাল সেনের শেষ ইচ্ছাকে মর্যাদা দিয়ে তাঁর মরদেহ রবীন্দ্রসদন বা অন্য কোথাও নিয়ে যাওয়া হবে না।  

 

 

দেখুন ভিডিও:

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং