৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জঙ্গিদের ডেরায় ঢুকে খতম করাই নতুন ভারতের নীতি। মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রের লাতুরে নির্বাচনী জনসভা করতে গিয়ে এই মন্তব্য করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর আরও দাবি, গত পাঁচ বছরে জঙ্গিদের শনাক্ত করে খতম করার ধারণাটা বাস্তবায়িত করেছে বিজেপি সরকার। প্রয়োজনে অন্যদেশের মাটিতেও ঢুকে করছে। পাকিস্তানকে জন্ম দেওয়ার জন্য কংগ্রেসকে আক্রমণ করে মোদি বলেন, “পাকিস্তানকে সৃষ্টি করার জন্য কংগ্রেসই দায়ী। কাশ্মীর সংক্রান্ত বিষয়ে কংগ্রেসের ইস্তেহার ও পাকিস্তান একই সুরে কথা বলে। যদি স্বাধীনতার আগে কংগ্রেস নেতারা বিবেচনা করে কাজ করতেন তাহলে জন্মই হত না পাকিস্তানের।”

[আরও পড়ুন- চামড়ার ভিতর লুকনো বেনামী সম্পত্তি কমল নাথের ভাইপোর বাড়িতে!]

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রথমে দুজন ভারতীয় পাইলটকে আটক করেছে বলে সংবাদমাধ্যমে দাবি করেছিল পাকিস্তান। কিন্তু পরে শুধুমাত্র অভিনন্দন বর্তমানের কথা জানায়। আর অন্য যে পাইলটের কথা তারা বলেছিল সে পাকিস্তানেরই বলে খবর পাওয়া যায়। এবং তাকে পাকিস্তানের লোকেরাই ভারতের পাইলট ভেবে পিটিয়ে মেরেছিল বলে খবর। মঙ্গলবারের সভা থেকে সেই ঘটনার কথা উল্লেখ করে পাকিস্তানকে কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, “ওরা প্রথমে সংবাদমাধ্যমকে বলল ওদের কাছে দুজন পাইলট আছে। কিন্তু সন্ধ্যায় বলল একজন। এখন তো একটি শিশুও জানে দ্বিতীয় ওই পাইলটের সঙ্গে কী হয়েছিল।”

[আরও পড়ুন- বর সেজে ঘোড়ায় চেপে মনোনয়ন জমা দিতে গিয়ে বিপাকে প্রার্থী]

মঙ্গলবারের সভা থেকে কাশ্মীরের আলাদা প্রধানমন্ত্রীর দাবিকে সমর্থন করা নিয়ে কংগ্রেস ও এনসিপি জোটের তীব্র সমালোচনা করেন মোদি। এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ারকে কটাক্ষ করে বলেন, “কংগ্রেসের কাছে কোনও প্রত্যাশা নেই দেশের। কিন্তু, শরদ সাহেব আপনি? এটা কি আপনাকে শোভা দেয়?” দেশকে আরও শক্তিশালী করার জন্য নতুন ভোটারদের কাছে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার আবেদন জানান নরেন্দ্র মোদি। তাঁর কথায়, “আপনার জীবনের প্রথম ভোটে কি একজন গরিব বাড়ি পাবেন? আপনার প্রথম ভোট কি কৃষকের জমিতে সেচের জল পৌঁছনোকে সুনিশ্চিত করবে? এপ্রসঙ্গে বালাকোটের এয়ারস্ট্রাইকের কথাও উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, ‘নতুন ভোটারদের আমি প্রশ্ন করতে চাই যে আপনাদের প্রথম ভোট কি বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইক করা বীর পাইলটদের সম্মানে দিতে পারবেন? আপনি কি পুলওয়ামায় যে বীর জওয়ানরা শহিদ হয়েছেন তাঁদের সম্মানে দিতে পারবেন? দলের নির্বাচনী ইস্তেহারে এয়ার স্ট্রাইকের বিষয়ে কোনও প্রতিশ্রুতি দিইনি আমরা। কিন্তু, দরকারে এই ঘটনা আবার ঘটবে। তাই আপনারা জীবনের প্রথম ভোট যারা এয়ার স্ট্রাইক করেছে তাদেরই উৎসর্গ করুন। যারা সদ্য ১৮ পেরিয়েছেন, সমাজের জন্য তাঁদের কিছু অবদান রাখা উচিত। তাই দেশের জন্য, একটি মজবুত সরকারকে ভোট দিয়ে দেশকে শক্তিশালী করুন।”

[আরও পড়ুন-‘বুলেটের জবাব ব্যালটে’, দৃঢ় প্রতিজ্ঞায় বুক বাঁধছে অসমের বাঙালিরা]

এরপরই কংগ্রেসকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, “গত ছমাস ধরে ওরা বলছে চৌকিদার চোর হ্যায়। কিন্তু, সবাই দেখছে যে কাদের কাছ থেকে নোটের বান্ডিল বাজেয়াপ্ত হচ্ছে। কে চৌকিদারকে ভয় পাচ্ছে? যদি অনেক টাকা বাজেয়াপ্ত হয়, তাহলে স্বাভাবিকভাবেই ওরা চৌকিদারকে হেনস্তা করবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং